Showing posts with label স্বাস্থ্য. Show all posts
Showing posts with label স্বাস্থ্য. Show all posts

Wednesday, August 26, 2020

করোনায় দেশে রেকর্ড মৃত্যু!

করোনায় দেশে রেকর্ড মৃত্যু!

S.I Topic Name Details Date
1 Corona Corona Update today 26 August 2020

আজ ২৬ আগষ্ট স্বাস্থ্যমন্ত্রণালয়ের বিবৃতি থেকে জানা গেছে দেশে করোনায় নতুন করে আরো ৫৬ জনের মৃত্যু হয়েছে।  এ নিয়ে সর্বমেট মৃত্যুর সংখ্যা দাড়িয়েছে ৪ হাজার ৮২ জনে।

এছাড়া দেশে নতুন করে আরো ২৫শ ১৯ জনের দেহে নতুন করে করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। দেশে এখন মোট করোনা শনাক্ত রোগীর সংখ্যা দাড়িয়েছে ৩ লাখ ২ হাজার ১৪৭ জনে।

দেশে ২৪ ঘন্টায় নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছিল ১৫ হাজার ৭০ টি। দেশে ২৪ ঘন্টায় মোট সুস্থ হয়েছেন ৩৪২৭ জন

আজ দুপুরে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এসব তথ্য জানায়।   

আরো পড়ুনঃ

পুরাতন ল্যাপটপ কিনার যেসব বিষয় খেয়াল রাখতে হয়।

কমলো করোনা টেস্টর ফী।

ডাইনোসরের একটি ক্ষুদ্র আত্মীয়কে আবিষ্কার করেছেন বিজ্ঞানীরা।

আমাদের গ্যালক্সিতে রয়েছে ৩০ টিরও বেশি এলিয়েন সভ্যতা।

ভয়াবহ দাবানলে পুড়ছে ক্যালিফোর্নিয়া।

A different kinds of protest

50 most beautiful places in Bangladesh 

যেসব দেশে ফেসবুক নিষিদ্ধ। 

মানুষ কি ডাইনোসরের মত বিলুপ্ত হয়ে যেতে পারে

★ গেম অফ থ্রোনস নিয়ে বিষ্ময়কর কিছু তথ্য।

ঘুড়ি উড়াতে গিয়ে যুবকের মৃত্যু। 

★ ১৫ বছরের মধ্যেই আর্কটিকের সব বরফ হলে যাবে।

★ ম্যাজিক মাশরুম পর্যবেক্ষণ করলো বিজ্ঞানীরা।              

মানুষের লালাগ্রন্থি এবং লালাগ্রন্থির কাজ।

মানুষের লালাগ্রন্থি এবং লালাগ্রন্থির কাজ।

Savilary gland


মানুষের মুখের অন্যতম দরকারি একটি উপাদান হলো লালা। তবে বেশিরভাগ মানুষই লালা সম্পর্কে   তেমন কিছুই জানে না।লালার সঙ্গ এভাবে বলা যেতে পারে যে, মানুষের লালাগ্রন্থি থেকে নিঃসৃত রসকে লালা বা লালারস বলে। আপনি জানলে অবাক হবেন যে একজন সুস্থ মানুষ দৈনিক ১২০০-১৫০০ মিলি লালা নিঃসরণ করে। লালার কারণে মুখগহ্বরে সবসময় আম্লিক অবস্থা বিরাজ করে। এর pH হলো ৬.২-৭.৪।

আজকে আমরা লালাগ্রন্থি এবং লালার কাজ নিয়ে।মানুষের মুখের দুইপাশে ৩ জোড়া লালাগ্রন্থি আছে। এসব লালাগ্রন্থি থেকে প্রতিনিয়ত লালা উৎপন্ন হচ্ছে এবং নির্গত হচ্ছে। 

এ তিনজোড়া লালাগ্রন্থি হলো যথাক্রমে ১। প্যারোটিড গ্রন্থি ২। সাবম্যান্ডিবুলার গ্রন্থি ৩। সাবলিঙ্গুলয়া গ্রন্থি।


এদের সংক্ষিপ্ত বর্ণনা উল্লেখ করা হলোঃ

i. প্যারোটিড গ্রন্থি(Parotid gland): এটা হচ্ছে তিনটি লালাগ্রন্থির মধ্যে সবচেয়ে বড়টি। এর সংখ্যা দুটি। প্রতি কানের নিচে একটি করে অবস্থান করে। প্রতিটি গ্রন্থি থেকে একটি করে নালি বের হয়ে মুখগহ্বরে উন্মুক্ত হয়।


ii. সাবম্যান্ডিবুলার গ্রন্থি (Submandibular gland): এর সংখ্যা দুটি। নিম্ন চোয়ালের কৌনিক অঞ্চলের নিচে একটি করে সাবম্যান্ডিবুলার গ্রন্থি অবস্থিত। এ গ্রন্থির নালি জিহ্বার পাশে উন্মুক্ত হয়।


iii. সাবলিঙ্গুয়াল গ্রন্থি (Sublingual gland): জিহবার নিচে একজোড়া সাবলিঙ্গুয়াল গ্রন্থি অবস্থান করে। এদের নালি জিহ্বার নিচে ফ্রেনুলাম নামক বিশেষ নালির পাশে উন্মুক্ত হয়। 


 আরো পড়ুনঃ

পুরাতন ল্যাপটপ কিনার যেসব বিষয় খেয়াল রাখতে হয়।

★কমলো করোনা টেস্টর ফী।

ডাইনোসরের একটি ক্ষুদ্র আত্মীয়কে আবিষ্কার করেছেন বিজ্ঞানীরা।

আমাদের গ্যালক্সিতে রয়েছে ৩০ টিরও বেশি এলিয়েন সভ্যতা।

★ভয়াবহ দাবানলে পুড়ছে ক্যালিফোর্নিয়া।

A different kinds of protest

★50 most beautiful places in Bangladesh 

যেসব দেশে ফেসবুক নিষিদ্ধ। 

মানুষ কি ডাইনোসরের মত বিলুপ্ত হয়ে যেতে পারে

★ গেম অফ থ্রোনস নিয়ে বিষ্ময়কর কিছু তথ্য।

ঘুড়ি উড়াতে গিয়ে যুবকের মৃত্যু। 

★ ১৫ বছরের মধ্যেই আর্কটিকের সব বরফ হলে যাবে।

★ ম্যাজিক মাশরুম পর্যবেক্ষণ করলো বিজ্ঞানীরা।


এবার জানা যাক লালায় কি কি উপাদান থাকেঃ

১। পানি

২। স্যালিভারি আ্যামাইলেজ

৩। সেডিয়াম, বাইকার্বোনেট,পটাশিয়াম, ক্লোরাইড, ফসফেট।

এছাড়া লালায় লাইসেজাইম নামক এনজাইম পাওয়া যায়। লালাগ্রন্থির ক্ষরণ শতকরা ৯৯.৫০ ভগ পানি এবং ০.৫০ ভাগ ইলেক্ট্রোলাইট এবং প্রোটিন ধারণ করে। 

এবার দেখে নেওয়া যাক লালার কাজ কীঃ

 লালা আমাদের জন্য অনেক প্রয়োজনীয় একটি উপাদান। লালা যেসব কাজ করে থাকে।

i. লালার প্রায় ৯৯.৫% হলো পানি। খাদ্যের স্বাদ অনুভব এবং পরিপাকের সময় বিক্রিয়া ঘটানোর জন্য পানি খাদ্যকে নরম ও সিক্ত করে। পানি মুখগহ্বরের অভ্যন্তরকে অার্দ করে। ফলে খাদ্য চর্বন এবং গলাধঃকরণে সহায়ক হয়। জিহবায় অবস্থিত স্বাদকুড়িগুলো খাদ্যের স্বাদ গ্রহণের দায়ী। এসব স্বাদকুড়িগুলো শুকনো অবস্থায় কাজ করে না। লালায় এগুলো ভিজলে খাদ্যের স্বাদ গ্রহণের কাজটি সম্পন্ন করতে পারে।

ii. মুখ, জিহবা, ঠোট লালা দ্বাড়া সিক্ত থাকায় কথা  বলায় সুবিধা হয়।

iii. লালা খাদ্য চর্বন ও গলাধঃকরণে সহয়তা করে।

iv. লালায় অবস্থিত ক্লোরাইড স্যাভিলারি অ্যামাইলেজকে সক্রিয় করে।

v. লালায় অবস্থিত টায়ালিন এনজাইম রান্না করা স্টার্চের পকিস্যাকারাইডকে ভাঙ্গতে সহায়তা করে।

vi. লালা মুখের ভিতরে আম্লিক অবস্থা ৬.২-৭.৪ এর মধ্যে রেখে দাতের ক্ষয় রোধ করে।

vii. লালায় অবস্থিত লাইসেজাইম এনজাইম ব্যাকটেরিয়া ধ্বংস করে দাঁতকে রক্ষা করে।

viii. লালা সামগ্রিকভাবে মুখ অভ্যন্তর এবং দাত থেকে কোষীয় ও খাদ্যের ধ্বংসাবশেষ পরিষ্কার করে এবং মুখের নরম অংশের সংবেদনশীলতা বজায় রাখতে সহায়তা করে।

Tuesday, August 25, 2020

টাঙ্গাইলের করোনা পরিস্থিতি

টাঙ্গাইলের করোনা পরিস্থিতি

S.I Topic Name Details Date
1 Corona Corona Update today 24 August 2020

সারাদেশে করোনা ভাইরাস মহামারীর প্রকোপ এখনো অপরিবর্তিত রয়েছে। দেশে প্রতিদিন হাজারের উপর নতুন রোগী শনাক্ত হচ্ছে।

আমাদের টাঙ্গাইল জেলাও করোনা সংক্রমণের অন্যতম উৎস হয়ে উঠেছে। 

আজ ২৪ আগষ্ট পর্যন্ত টাঙ্গাইল জেলায় মোট করোনা ভাইরাস আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছে ২৩৫৪ জন।এর মধ্যে গত ২৪ ঘন্টায় নতুন আক্রান্ত   হয়েছে আরো ৪৫ জন। 

এখম পর্যন্ত আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৩৬ জন।

Monday, August 24, 2020

করোনায় আবারো মৃত্যু বাড়লো

করোনায় আবারো মৃত্যু বাড়লো

S.I Topic Name Details Date
1 Corona Corona Update today 24 August 2020

 আজকে ২৪ আগষ্ট ২০২০ স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে দেশে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আরো ৪২ জন মৃত্যুবরণ করেছেন।

দেশে আরো নতুন করোনা ভাইরাসেে আক্রান্ত হয়েছেন    ২৪৮৫ জন।    আজকে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় অনলাইন বিঙ্গপ্তিতে এসব জানায়।


আরো পড়ুনঃ

পুরাতন ল্যাপটপ কিনার যেসব বিষয় খেয়াল রাখতে হয়।

কমলো করোনা টেস্টর ফী।

ডাইনোসরের একটি ক্ষুদ্র আত্মীয়কে আবিষ্কার করেছেন বিজ্ঞানীরা।

আমাদের গ্যালক্সিতে রয়েছে ৩০ টিরও বেশি এলিয়েন সভ্যতা।

ভয়াবহ দাবানলে পুড়ছে ক্যালিফোর্নিয়া।

A different kinds of protest

50 most beautiful places in Bangladesh 


বর্তমানে দেশে মোট করোনা আক্রান্ত রেগীর সংখ্যা ২ লাখ ৯৭ হাজার ৮৩ জন। মোট মৃত্যুর সংখ্যা ৩  হাজার ৯৮৩ জন।

 এর আগের দিন ২২ আগষ্ট রবিবার ৩৪ জন করোনা ভাইরাসেে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেছে।এ নিয়ে মোট মৃত্যুর সংখ্যা দাড়িয়েছে  ৩৯৪১ জনে।

আরো নতুন আক্রান্ত হয়েছেন ১৯৭৩ জন। এ নিয়ে মোট আক্রান্ত হলো ২ লাখ ৯৪ হাজার ৫৯৮ জন। 


গত ২৪ ঘন্টায় ১৩৩৮৩ টি নমুনা পরীক্ষা করা হয় এতে নতুন আক্রান্ত পাওয়া যায় ২৪৮৫ জন।

২৪ ঘন্টায় সুস্থ্য হয়েছেন আরো  ৩৭৮৪ জন    ।  

Sunday, August 23, 2020

দেশে করোনায় আরো ৩৪ জনের মৃত্যু

দেশে করোনায় আরো ৩৪ জনের মৃত্যু

S.I Topic Name Details Date
1 Corona Corona Update today 23 August

 আজকে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে দেশে নতুন করে আরো ৩৪ জন করোনা ভাইরাসেে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেছে।এ নিয়ে মোট মৃত্যুর সংখ্যা দাড়িয়েছে  ৩৯৪১ জনে।

আরো নতুন আক্রান্ত হয়েছেন ১৯৭৩ জন। এ নিয়ে মোট আক্রান্ত হলো ২ লাখ ৯৪ হাজার ৫৯৮ জন।

  আজকে ২৩ আগষ্ট রবিবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের বিঙ্গপ্তিতে এসব জানানো হয়।

আরো পড়ুনঃ

পুরাতন ল্যাপটপ কিনার যেসব বিষয় খেয়াল রাখতে হয়।

কমলো করোনা টেস্টর ফী।

ডাইনোসরের একটি ক্ষুদ্র আত্মীয়কে আবিষ্কার করেছেন বিজ্ঞানীরা।

আমাদের গ্যালক্সিতে রয়েছে ৩০ টিরও বেশি এলিয়েন সভ্যতা।

ভয়াবহ দাবানলে পুড়ছে ক্যালিফোর্নিয়া।

A different kinds of protest

50 most beautiful places in Bangladesh 


দেশে মৃত্যু বরণ করা ৩৪ জনের মধ্যে ১৪ জন পুরুষ ও ১০ জন নারী।

দেশে ২৪ ঘন্টায় সুস্থ হয়েছেন আরো  ৩ হাজার ৫২৪ জন   । 

গত ২৪ ঘন্টায় নমুনা পরীক্ষা করো হয়েছে ১০ হাজার ৯০১ টি।


কমলো করোনা পরীক্ষার ফী!

কমলো করোনা পরীক্ষার ফী!

করোনা ভাইরাস পরীক্ষার জন্য নির্ধারিত ফি এর পরিমাণ কমানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

এখন থেকে বুথ বা হাসপাতলে গিয়ে টেস্ট করালে লাগবে ১০০ টাকা এবং বাসায় টেস্ট করালে লাগবে ৩০০ টাকা।


আরো পড়ুনঃ

পুরাতন ল্যাপটপ কিনার যেসব বিষয় খেয়াল রাখতে হয়।

কমলো করোনা টেস্টর ফী।

ডাইনোসরের একটি ক্ষুদ্র আত্মীয়কে আবিষ্কার করেছেন বিজ্ঞানীরা।

আমাদের গ্যালক্সিতে রয়েছে ৩০ টিরও বেশি এলিয়েন সভ্যতা।

ভয়াবহ দাবানলে পুড়ছে ক্যালিফোর্নিয়া।

A different kinds of protest

50 most beautiful places in Bangladesh 

এর আগে করোনা ভাইরাস পরীক্ষা  বিনামূল্যে থাকলেও স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় একটি নির্ধারিত ফী কার্যকরের সিদ্ধান্ত নেয়।

আগে বাসায় টেস্ট করালে খরচ হতো ৫০০ টাকা এবং বুথে করালে খরচ হত ৩০০ টাকা।

এখন থেকে তা আর থাকছে না।

Latest post:

যেসব দেশে ফেসবুক নিষিদ্ধ। 

মানুষ কি ডাইনোসরের মত বিলুপ্ত হয়ে যেতে পারে

★ গেম অফ থ্রোনস নিয়ে বিষ্ময়কর কিছু তথ্য।

ঘুড়ি উড়াতে গিয়ে যুবকের মৃত্যু। 

★ ১৫ বছরের মধ্যেই আর্কটিকের সব বরফ হলে যাবে।

★ ম্যাজিক মাশরুম পর্যবেক্ষণ করলো বিজ্ঞানীরা।

Saturday, August 22, 2020

দেশে গত ২৪ ঘন্টায় ২২৬৫ জনের দেহে করোনা শনাক্ত হয়ছে এবং মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৪৬ জন হয়েছে।

দেশে গত ২৪ ঘন্টায় ২২৬৫ জনের দেহে করোনা শনাক্ত হয়ছে এবং মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৪৬ জন হয়েছে।

S.I Topic Name Details Date
1 Corona Corona Update today 22 August 2020

 করোনা মহামারিতে দেশে গত ২৪ ঘন্টায় ২২৬৫ জনের দেহে করোনা শনাক্ত হয়ছে এবং মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৪৬ জন হয়েছে।      

এ নিয়ে দেশে মোট আক্রান্ত সংখ্যা দাড়িয়েছে ২ লাখ ৯২ হাজার ৬২৫ জনে এবং মোট মৃত্যুর সংখ্যা দাড়িয়েছে ৩ হাজার ৯০৭ জনে।    

Latest post:

যেসব দেশে ফেসবুক নিষিদ্ধ। 

মানুষ কি ডাইনোসরের মত বিলুপ্ত হয়ে যেতে পারে

★ গেম অফ থ্রোনস নিয়ে বিষ্ময়কর কিছু তথ্য।

ঘুড়ি উড়াতে গিয়ে যুবকের মৃত্যু। 

★ ১৫ বছরের মধ্যেই আর্কটিকের সব বরফ হলে যাবে।

★ ম্যাজিক মাশরুম পর্যবেক্ষণ করলো বিজ্ঞানীরা।

গত ২৪ ঘন্টায় নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছিল ১১৩৬৫ টি।

আজকে স্বাস্থমন্ত্রাণলয়ের  অতিরিক্ত অধ্যাপক  ড. নাসিমা সুলতানা সাক্ষারীত বিঙ্গপ্তিতে এসব বলা হয়েছে।     

  

মধুপুরে আরো ২ জন করোনারোগী শনাক্ত!

মধুপুরে আরো ২ জন করোনারোগী শনাক্ত!

 করোনা মহামারিতে সারাদেশের মত মধুপুরেরও দিন দিন করোনা রোগী বাড়ছে।

এরমধ্যে গত ২৪ ঘন্টায় নতুন করে আরো ২ জনের দেহে করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে।

এ নিয়ে মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা দাড়িয়েছে ১৬৪ জনে।

করোনা পরিস্থিতি খারাপ হওয়ার সাথে সাথে মধুপুরের মানুষদের স্বাস্থবিধি মেনে চলতে বিশেষভাবে অনুরোধ করা হয়।

এখানে উল্লেখ্য যে মধুপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার করোনা আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি আছেন।          

Latest post:

যেসব দেশে ফেসবুক নিষিদ্ধ। 

মানুষ কি ডাইনোসরের মত বিলুপ্ত হয়ে যেতে পারে

★ গেম অফ থ্রোনস নিয়ে বিষ্ময়কর কিছু তথ্য।

ঘুড়ি উড়াতে গিয়ে যুবকের মৃত্যু। 

★ ১৫ বছরের মধ্যেই আর্কটিকের সব বরফ হলে যাবে।

★ ম্যাজিক মাশরুম পর্যবেক্ষণ করলো বিজ্ঞানীরা।         

Wednesday, July 1, 2020

ম্যাজিক মাশরুম কিভাবে আপনার মস্তিষ্কের অহংকারকে প্রশমিত করে?

ম্যাজিক মাশরুম কিভাবে আপনার মস্তিষ্কের অহংকারকে প্রশমিত করে?

S.I Topic Name Details Date
1 বিজ্ঞান ম্যাজিক মাশরুম 1 Jun 020


ম্যাজিক মাশরুম


নতুন গবেষণায় ম্যাজিক মাশরুমের অসাধারণ একটি দিক উঠে এসেছে। 

নিউরোপসাইকফর্মাকোলজি জার্নালে গত মাসে প্রকাশিত একটি গবেষণায় দেখা গেছে যে সাইক্যাডেলিক অভিজ্ঞতাগুলি অহংকারকে দ্রবীভূত করতে পারে, যা সাইকেডেলিক অ্যাডভোকেটরা নামে কয়েক দশক ধরে বলে আসছেন। গবেষণায় গবেষকরা দেখেছিলেন যে কীভাবে সিলোসাইবিন মস্তিষ্কের গ্লুটামেট ক্রিয়াকলাপকে প্রভাবিত করে। 



 গ্রুটামেট কী?

গ্লুটামেট হ'ল মস্তিষ্কের সর্বাধিক সাধারণ নিউরোট্রান্সমিটার যা আত্ম-সম্মান এবং অন্যান্য ব্যক্তিগত বৈশিষ্ট্যে ভূমিকা পালন করে বলে মনে করা হয়। 

গবেষকরা আবিষ্কার করেছেন যে সাইক্যাডেলিক অভিজ্ঞতার সময় গ্লুটামেটের স্তরগুলি ওঠানামা করে বলে মনে হয়েছিল। গবেষকরা স্বাস্থ্যবান সুস্থ স্বেচ্ছাসেবীর মস্তিষ্ক নিরীক্ষণের জন্য চৌম্বকীয় অনুরণন ইমেজিং (এমআরআই) ব্যবহার করেছিলেন। অন্যান্য অনেক উল্লেখযোগ্য অনুসন্ধানের মধ্যে গবেষকরা পর্যবেক্ষণ করেছেন যে বিভিন্ন অভিজ্ঞতা মস্তিষ্কের বিভিন্ন অংশে বিভিন্ন স্তরের গ্লুটামেটের সাথে সম্পর্কিত বলে মনে হয়। স

সমীক্ষায় লেখকরা লিখেছেন: “বিশ্লেষণগুলি ইঙ্গিত দেয় যে গ্লুটামেটে অঞ্চল নির্ভর পরিবর্তনগুলিও অহংকার বিলোপের বিভিন্ন মাত্রার সাথে সম্পর্কযুক্ত। [কর্টিকাল] গ্লুটামেটে পরিবর্তনগুলি যেখানে নেতিবাচকভাবে অভিজ্ঞ অহংকার বিলোপের শক্তিশালী ভবিষ্যদ্বাণী হিসাবে দেখা গেছে, হিপ্পোক্যাম্পাল গ্লুটামেটে পরিবর্তনগুলি ইতিবাচক অভিজ্ঞতা অহংকার বিলোপের ক্ষেত্রে অন্যতম ভবিষ্যদ্বাণী হিসাবে দেখা গেছে। " 

স্বেচ্ছাসেবকদের সাথে সাক্ষাৎকারের মাধ্যমে তারা অহংকারের একটি দ্রবীভূতকরণ লক্ষ্য করেছেন, তবে কীভাবে এটি গ্লুটামেট স্তরের সাথে যুক্ত রয়েছে তা এখনও তারা নিশ্চিত নয়। 

গবেষকরা পরামর্শ দিয়েছেন, "আমাদের উপাত্তগুলি এই হাইপোথিসিসে যুক্ত করে, যা পরামর্শ দেয় যে বিশেষত হিপোক্যাম্পাল গ্লুটামেটের পরিবর্তনগুলি (ধনাত্মক) অহংকার সংশ্লেষের অনুভূতিগুলির অন্তর্নিহিত অনুভূতির মূল মধ্যস্থতা হতে পারে।" 

সাইকোফার্মাকোলজি জার্নালে প্রকাশিত 2018 এর আগের একটি সমীক্ষায় দেখা গেছে যে, সাইকোডেলিক্স মানুষকে কর্তৃত্বের প্রতি আরও প্রতিরোধী করে তুলেছে। তারা এই মাশরুম দ্বারা উৎসাহিত মনোরোগ অভিজ্ঞতাও মানুষ প্রকৃতির সাথে আরও সংযুক্ত হওয়ার কারণ ঘটেছে। এই উপসংহারগুলি সাইকেডেলিক ড্রাগ ব্যবহারকারীরা বহু বছরের ধরে ধরে থাকা তত্ত্বগুলির সাথে মেলে এবং সত্য যদি সত্য হয় তবে এটি ব্যাখ্যা করতে পারে যে সরকারী সত্তাগুলি কেন সাইকেলেডিক ড্রাগগুলি সম্পর্কে এত ভয় পান। আধুনিক সাইকিডেলিক যুগের অন্যতম শীর্ষস্থানীয় টেরেন্স ম্যাককেনা এই পরিস্থিতির প্রকৃতিটি খুব ভালভাবেই বুঝতে পেরেছিলেন এবং সাইক্যাডেলিক শামানিজমের বিস্ময়কর বিষয়ে শ্রোতাদের সাথে কথা বলতে বিশ্বজুড়ে ভ্রমণ করেছিলেন। 


তার এক বক্তৃতায় টেরেন্স এই মনস্তত্ত্বে তদন্তকে বেশ ভাল করে বলেছেন: “সমস্ত সংস্কৃতি সংস্কৃতি গেমের সাথে জড়িত এবং মনস্তাত্ত্বিকরা সংস্কৃতি গেমকে ছাড়িয়ে যায়, এবং আপনি জেরুজালেমের নাগরিক, টোকিও স্টকব্রোকার বা উপজাতি দ্বীপপুঞ্জী যখন আপনি সাইক্যাডেলিক পদার্থ গ্রহণ করেন তখন আপনার সাংস্কৃতিক মূল্যবোধ হঠাৎ করে আপনার কাছে অনেক বেশি আপেক্ষিকভাবে প্রকাশিত হবে । এবং এটি রাজনৈতিক ডায়নামাইট। সাইকেল্ডিকরা কোনও সংস্কৃতি বা রাজনৈতিক ব্যবস্থার অনুমানকে চ্যালেঞ্জ করে এবং এটি তাদের প্রতিটি সংস্কৃতি বা রাজনৈতিক ব্যবস্থার জন্য বিপজ্জনক করে তোলে। আপনারা জানেন যে, ফেসবুক, টুইটার এবং গুগলের মতো প্রযুক্তিগত জায়ান্ট (এছাড়াও ইউটিউব), ক্রমবর্ধমান সেন্সর তথ্য যা মূলধারার বর্ণনার সাথে খাপ খায় না। বাকস্বাধীনতা হ'ল মৌলিক মানবাধিকার হওয়া উচিত, তবে বর্তমান যুগে আপনাকে আর আপনার মতামত ভাগ করার অনুমতি নেই। ভাগ্যক্রমে, বিকল্প প্ল্যাটফর্মগুলি প্রদর্শিত হয় যা সেন্সর-মুক্ত। মাইন্ডস ডট কম এই প্ল্যাটফর্মগুলির মধ্যে একটি। "

চিত্র ক্রেডিট: কিরিলভাসিলেভকম এবং সাববোটিনা

Tuesday, June 30, 2020

"O" গ্রুপের রক্ত ধারণকারী ব্যক্তিরা কেন এত গুরুত্বপূর্ণ!

"O" গ্রুপের রক্ত ধারণকারী ব্যক্তিরা কেন এত গুরুত্বপূর্ণ!

S.I Topic Name Details Date
1 বিজ্ঞান রক্তের গ্রুপ 30 Jun 2020


রক্তের গ্রুপ আলোচনা


আপনি কি জানেন ও গ্রুপের রক্ত ধারণকারী ব্যাক্তিরা সমাজের জন্য খুব গুরুত্বপূর্ণ? 




প্রাচীন কাল থেকে আজ অবধি এই গ্রুপের রক্ত ধারণকারী লোকেরা যে কোনও সমাজে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন এসেছে। রক্তের গ্রুপগুলোর মধ্যে  'ও' হলো আমাদের পূর্বপুরুষদের প্রাথমিক রক্তের ধরণ, যারা ছিল ধূর্ত, আক্রমণাত্মক শিকারী। এটি প্রায়শই বিশ্বাস করা হয় যে তাদের স্বতন্ত্রতা এই সত্য থেকে আসে যে, আমাদের পূর্বপুরুষরা শিকারি ছিল যারা বেঁচে থাকতে সক্ষম হওয়ার জন্য পরিবেশটি পর্যবেক্ষণ ও নির্ভুলভাবে মূল্যায়ন করতে পেরেছিল।

এ গ্রুপের রক্ত ধারণকারী লোকেরা আশ্চর্যজনক গুণাবলীর অধিকারী, যেমন শক্তি এবং মনোনিবেশ করার ক্ষমতা, শক্তি, নেতৃত্বের জন্য প্রয়োজনীয় বৈশিষ্ট্য, উৎপাদনশীলতা এবং সক্রিয়তা। তাদের জেনেটিক উত্তরাধিকার তাদেরকে একটি শক্তিশালী, উৎপাদনশীল, দীর্ঘজীবন এবং আশাবাদী হওয়ার সুযোগ দেয়।

জাপানিরা এই রক্তের ধরণটিকে একটি নির্দিষ্ট ধরণের ব্যক্তিত্বের সাথে তুলনা করেন। এ রক্তের ধরণের লোকেরা প্রায়শই প্রতিশ্রুতিবদ্ধ, সংগঠিত, মনোনিবেশিত, দায়বদ্ধ, বিবেকবান এবং ব্যবহারিক হিসাবে বর্ণনা করা হয়। এটি বিশ্বাস করা হয় যে তারা আরও ভাল লজিস্টিয়ান এবং আরও ভাল দিকনির্দেশে সক্ষম হতে পারে।

আরো পড়ুনঃ

পুরাতন ল্যাপটপ কিনার যেসব বিষয় খেয়াল রাখতে হয়।

কমলো করোনা টেস্টর ফী।

ডাইনোসরের একটি ক্ষুদ্র আত্মীয়কে আবিষ্কার করেছেন বিজ্ঞানীরা।

আমাদের গ্যালক্সিতে রয়েছে ৩০ টিরও বেশি এলিয়েন সভ্যতা।

ভয়াবহ দাবানলে পুড়ছে ক্যালিফোর্নিয়া।

A different kinds of protest

50 most beautiful places in Bangladesh 



"ও" গ্রুপের রক্তের কিছু প্রতিবন্ধকতাও রয়েছে। 

অস্বাস্থ্যকর অভ্যাস বা উন্নত স্ট্রেসের মাত্রা, দুর্বল ডায়েট, ব্যায়ামের অভাব, তাদের ইনসুলিন প্রতিরোধের, থাইরয়েড গ্রন্থির নিম্ন ক্রিয়াকলাপ এবং স্থূলত্ব সহ প্রতিকূল বিপাকীয় প্রভাবগুলির প্রতি আরও সংবেদনশীল করে তুলছে। যদি চাপের মধ্যে থাকে তবে তারা রাগান্বিত, হাইপারেটিভ এবং প্ররোচিত হতে পারে। অতিরিক্ত রাগ এবং হাইপার্যাকটিভিটির কারণে স্ট্রেস হতে পারে।


এই রক্তের ধরণের লোকেরা আলসার এবং থাইরয়েড কর্মহীনতার মতো নির্দিষ্ট কিছু রোগের শিকার হতে পারে। অন্যান্য রক্তের চেয়ে এদের পাকস্থলীর অ্যাসিড উচ্চ মাত্রায় থাকে, এর ফলে প্রায়শই পেটে জ্বালা ও পেটের আলসার হয়।

এছাড়াও, রক্ত ​​গ্রুপ ও এর সদস্যদের মধ্যে প্রায়শই থাইরয়েড হরমোন এবং অপর্যাপ্ত আয়োডিন থাকে, একটি রাসায়নিক উপাদান যার একমাত্র উদ্দেশ্য থাইরয়েড হরমোনগুলি নিয়ন্ত্রণ করা। এটি স্থূলত্ব, তরল ধরে রাখা এবং ক্লান্তির মতো অনেক পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি করে।

আপনি যদি এই গ্রুপের রক্তের অধিকারী হন তবে আপনার দৈনন্দিন জীবন ও স্বাস্থ্য বাড়ানোর জন্য গুরুত্বপূর্ণ টিপস সরবরাহ করা হলো:


১। টেবিলে বসে সমস্ত খাবার, এমনকি স্ন্যাকস গ্রহণ করুন। সর্বদা আস্তে আস্তে চিবোন এবং শিথিল হন।

২। ক্যাফিন এবং অ্যালকোহল এড়াতে ভুলবেন না। ক্যাফিন বিশেষত ক্ষতিকারক হতে পারে কারণ অ্যাড্রেনালাইন এবং নোরড্রেনালাইন স্তর বাড়িয়ে তোলে।

৩। আপনার পুরো শরীরকে শিথিল করার জন্য, অনুশীলন করা গুরুত্বপূর্ণ। স্বাস্থ্য ও মানসিক স্থিতিশীলতা বজায় রাখতে ও গ্রুপের রক্তের ধরণী  সদস্যদের অন্য যে কোনও রক্তের চেয়ে শারীরিকভাবে সক্রিয় হওয়া প্রয়োজন। সপ্তাহে তিন থেকে চার বার নিয়মিত শারীরিক কার্যকলাপ প্রয়োজন।

৪। আপনার যদি অতিরিক্ত ওজন হয় তবে আপনার অনুশীলন করা দরকার। সেরা ফলাফলের জন্য, সপ্তাহে কমপক্ষে চারবার ত্রিশ থেকে চল্লিশ মিনিট ধরে এ্যারোবিক অনুশীলন করা উচিত।