Showing posts with label টিভি সিরিজ রিভিউ. Show all posts
Showing posts with label টিভি সিরিজ রিভিউ. Show all posts

Monday, September 21, 2020

ভাইকিংস টিভি সিরিজের সেরা কিছু চরিত্র

ভাইকিংস টিভি সিরিজের সেরা কিছু চরিত্র

 ভাইকিংস টিভি সিরিজের আমার কাছে সেরা চরিত্র

vikings review bangla


ভাইকিংস হলো একটি হলিউড টিভি সিরিজ। যা ২০১৩ সালে প্রথম রিলিস হয়। ভাইকিংস টিভি সিরিজটি রিলিজ হওয়ার সাথে সাথে চরম জনপ্রিয় হয়ে উঠে। 


ভাইকিংস টিভি সিরিজটির সেরা ১০ টি চরিত্র বর্ণনা করবো।


১. রেগনার লথব্রোকঃ 

ভাইকিংস টিভি সিরিজটির সবচেয়ে জনপ্রিয় চরিত্র হলো রেগনার। 

এক কথায় ভাইকিংস টিভি সিরিজটিই জনপ্রিয়তা পেয়েছে ওনার জন্য। রেগনারের কথা বলার ভঙ্গি, আর ফাইটিং স্কিল মুগ্ধ করেছিল দর্শকদের। 

রেগনার লথব্রোক একজন আগ্রাসী, ভাইকিংস। যে সবসময় বিশ্বাস করত তাদের বসবাস করা অঞ্চল উত্তর ব্যাতীতও আরো অনেক দেশ রয়েছে।

সে সবসময় সাগর পাড়ি দিয়ে পশ্চিমে যেতে চাইত।

কিন্তু তার কাজে বাগরা দিত তাদের কিং। যেকিনা কখনো বিশ্বাস করত না পশ্চিমে কিছু আছে বলে।

তাই নিজের জাহাজগুলো এ যাত্রায় ইনভেস্ট করতে রাজি ছিল না সে।

কিন্তু রেগনার তার স্বপ্নকে মনে প্রাণে বিশ্বাস কর। এডভেঞ্চারের আশায় সে গোপেন একটি নৌকা বানায়।

এরপর তার অনুগন কয়েকজনকে নিয়ে পাড়ি দেয় পশ্চিমে। রেগনার সফলভাবে পশ্চিমে পৌছাতে পারে। এখান থেকেই শুরু হয় রেগনারের যাত্রা। যা তাকে ইংল্যান্ড,পেরিস পর্যন্ত নিয়ে যায়। 

পশ্চিমে ইংল্যান্ড আবিষ্কারের পর রেগনারের খেতি সারা উত্তরে ছড়িয়ে পড়ে। এরপর একের পর এক সফল অভিযান চালায় সে।

ভাইকিংস টিভি সিরিজের দর্শকরা কখনো চায় নি কিং রেগনার হারিয়ে যাক। কিং রেগনারের মৃত্যুর পর ভাইকিংস টিভি সিরিজ অনেকটাই থেমে যায়।

এরপর টিভি সিরিজটির মোর ঘোরায় রেগনারের ছেলে বিয়ার্ন আয়রন সাইড।  


২. বিয়ার্ন আয়রনসাইডঃ

ভাইকিংস টিভি সিরিজের আমার দ্বিতীয় প্রিয় চরিত্র হলো বিয়ার্ন। নিজের পিতার মতই সাহসি, আগ্রাসী বিয়ার্ন হয়ে ওঠে অন্যতম সেরা ভাইকিংস।

সে তার পিতাকেও ছাড়িয়ে যায় এবং আবিষ্কার করে আরববিশ্ব।

তার এ আবিষ্কার এবং যুদ্ধের দক্ষতা তাকে খুব জনপ্রিয় করে তোলে।

লোকেরা তাকে বিয়ার্ন আয়রনসাইড উপাধি দেয়।

বিয়ার্ন চরিত্রটি খুবই শক্তিশালী একটি চরিত্র হিসেবে থেকে যায় শেষ পর্যন্ত।


৩. লাগাথাঃ ভাইকিংস টিভি সিরিজের সবচেয়ে শক্তিশালী মহিলা চরিত্র হলো লগাথা। 

এমনকি সিরিজ দুনিয়ায়তেও অন্যতম সেরা চরিত্র হিসেবে বিবেচনা করা হয় লাগাথাকে।

লাগাথা হলো রেগনার লথব্রোকের প্রথম স্ত্রী এবং বিয়ার্নের মা।

লাগাথাকে পৃথিবীর সেরা সিল্ড মেকার বলা হয়। 

তার জীবনে সবসময় লড়াই করে যায় সে।

অন্যতম শক্তিশালী একটি চরিত্র। 


৪. অার্থেস্টোনঃ দা প্রিস্ট নামে পরিচিত। রেগনারের সফলতার অন্যতম কান্ডারি হলো অার্থেস্টোন। 

রেগনার লথব্রোক তার প্রথম পশ্চিম অভিজানের সময় তাকে ধরে নিয়ে আসে দাস হিসেবে। পরবর্তীতে তাকে স্বাধীন করে দেয়। 

কিন্তু আর্থেস্টোন সারাজীবন রেগনারের অনুগত থাকে। রেগনার তাকে খুব ভালোবাসত। 

অার্থেস্টোনই রেগনারকে বিভিন্ন দেশ সম্পর্কে জানায়। 


৫. রোলোঃ রেগনার লথব্রোকের ভাই হলো রোলো।

 একজন সাহসী,শক্তিশালী, আগ্রাসী ভাইকিংস।

ভাইকিংস টিভি সিরিজের অন্যতম সেরা যোদ্ধা। 

তবে সেই ভাইকিংস টিভি সিরিজের অন্যতম ঘৃণ্য ব্যক্তি হিসেবে পরিচিত। 

যার বিশ্বাসঘাতকতার জন্য অনেককিছুই উলট পালট হয়ে যায়। 


আরো পড়ুনঃ★যেসব দেশে ফেসবুক নিষিদ্ধ। 

মানুষ কি ডাইনোসরের মত বিলুপ্ত হয়ে যেতে পারে

★ গেম অফ থ্রোনস নিয়ে বিষ্ময়কর কিছু তথ্য।

ঘুড়ি উড়াতে গিয়ে যুবকের মৃত্যু। 

★ ১৫ বছরের মধ্যেই আর্কটিকের সব বরফ হলে যাবে।

★ ম্যাজিক মাশরুম পর্যবেক্ষণ করলো বিজ্ঞানীরা।


৬. ফ্লোকিঃ ফ্লোকি দা বোর্ড বিল্ডার নামে পরিচিত। 

অত্যন্ত ধর্মপ্রিয়,একজন ইঞ্জিনিয়ার হলো ফ্লোকি।

যে বোর্ড বানানোর জন্য বিখ্যাত। রেগনারের প্রথম বোর্ডটিও সেই বানায়।

 তারা বানানো বোর্ডগুলো গতি ও ডিজাইনের দিক সবচেয়ে সেরা হয়। 

ফ্লোকির অসাধারণ বুদ্ধি ছিল,সে প্রকৃতিতে কাজে লাগাতে পারত। 


৭. আইভারঃ একজন পঙ্গু। আইভার দা বোনলেস নামে পরিচিত। রেগনারের ছেলেদের মধ্যে সবচেয়ে  বেশি হিংস্র হলো আইভার। 

অনেকে তাকে পাগল ও বলে। ভাইকিংস টিভি সিরিজের সবচেয়ে ঘৃণিত চরিত্র হলো আইভার। তার জন্যই মূলত উত্তরে সিভিল ওয়্যার শুরু হয়ে যায়।

তবে শেষপর্যন্ত সেই বেচে থাকে।


৮.  উবারঃ রেগনারের দ্বিতীয় ঘরের বড় ছেলে উবার। একদম পিতার মত দেখতে। বুদ্ধি শক্তিও যদ্ধে পারদর্শী।

ভাইকিংস টিভি সিরিজটি পৃথিবীর অন্যতম আকর্ষণীয় একটি টিভি সিরিজ। এ সিরিজ আপনাকে অন্য এক ধরনের ফিলিংস দিবে। 

আপনি যদি একজন ব্যাটেল বা যুদ্ধ নিয়ে মুভি দেখতে পছন্দ করেন তাহলে এ সিরিজটি আপনার অবশ্যই দেখা উচিত। কারণ এখানে আপনি যা পাবেন সবই এক্সট্রিম লেভেলের।

ধন্যবাদ।